ঢাবি প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর পদে যোগদান করেছেন অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর নিযুক্ত হয়েছেন। মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আদেশ, ১৯৭৩-এর ১৩(১) ধারা মোতাবেক তাঁকে এই নিয়োগ প্রদান করেছেন। 

তিনি আজ ২৮ মে ২০১৮ সোমবার সকালে প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর (প্রশাসন) পদে আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন।

সংক্ষিপ্ত জীবনবৃত্তান্ত:

অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদের জন্ম ময়মনসিংহ জেলার জামালপুরে ১৯৫৬ সালে। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে অধ্যাপক হিসেবে নিয়োজিত। তাঁর ৩৪ বছরের শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা রয়েছে। তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উইনোনা স্টেট ইউনিভার্সিটিতে ভিজিটিং অধ্যাপক হিসেবে ২০০৫ এবং ২০০৯ সালে পর-পর দুইবার পাঠদান করেন। 

অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে পরিচালক (২০০৯-২০১২) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০০৯-২০১৬ দুই মেয়াদে সিনেট সদস্য এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৪-২০১৬ পর্যন্ত সিনেট সদস্য ছিলেন। তিনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই মেয়াদ ২০০৯-২০১২ এবং ২০১৩-২০১৬), মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০০৯-২০১৬ ও ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অলটারনেটিভে ২০১১-২০১৬ পর্যন্ত সিন্ডিকেট সদস্য ছিলেন। তিনি সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয় একাডেমিক কাউন্সিল সদস্য ছিলেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সার্জেন্ট জহুরুল হক হলের হাউস টিউটর (১৯৯৬-২০০৪) এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাবের (২০১১) সম্পাদক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন।  

সর্বোপরি তিনি ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (UITS)-এ চার বছর (২০১২- ২০১৬) উপাচার্য হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন। 

অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ গবেষণা ফেলো হিসেবে ২০০৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে ক্যাথেরিন ক্যান্ডাল ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল সোশ্যাল ওয়ার্ক; জাপানস্থ টোকিওতে কলেজ অব সোশ্যাল ওয়ার্ক-এ ২০১৩, ২০১৪,  ২০১৫ সালে ৩টি গবেষণা সম্পন্ন করেন এবং তা প্রকাশিত হয়; বাংলাদেশ সরকারের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সোশ্যাল সায়েন্স রিসার্চ কাউন্সিলে ২০১২ ও ২০১৫ সালে দুটি ফেলোশিপ গবেষণা সম্পন্ন করেন। এছাড়াও তাঁর একাধিক প্রমোশনাল রিসার্চ রয়েছে। 

উল্লেখযোগ্য প্রকাশনা: ২০০৮ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রখ্যাত প্রকাশনা সংস্থা পাবলিশ আমেরিকা থেকে তাঁর একটি গবেষণাগ্রন্থ The Invisible People: Poverty and Resiliency in Dhaka Slum প্রকাশিত হয়েছে। সামাজিক উন্নয়ন, রাজনীতি ও সাহিত্য বিষয়ে তাঁর গবেষণা-প্রবন্ধগ্রন্থসমূহ হচ্ছে: ঝধহঃধষ Santal Community in Bangladesh : Problems and Prospects (Jointly, 2003); Participation of the Rural Poor in Government and NGO Programs: A Comparative Study (2002); Awareness About the Role of UN in Bangladesh: An Opinion Survey (2000); মানবাধিকার: ৫০ বছরের অগ্রযাত্রা (যৌথ-সম্পাদনা, ১৯৯৯); চতুর্থ বিশ্ব নারী সম্মেলন : বেইজিং ঘোষণা ও কর্মপরিকল্পনা (অনুবাদ-সম্পাদনা, ১৯৯৭); হৃদয়ে মুজিব : টুঙ্গিপাড়া বক্তৃতামালা (যৌথ-সম্পাদনা, ১৯৯৪); কবি ও কবিতার সংগ্রাম (যৌথ-সম্পাদনা, ১৯৯৪) এবং বাংলাদেশে গ্রামীণ দারিদ্রমোচনে এনজিওর ভূমিকা (১৯৯৪)। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক জার্নালে প্রকাশিত তাঁর অর্ধশত গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে (৯টি গ্রন্থ)। 

তাঁর উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ হচ্ছে : আমার দু’চোখ জলে ভরে যায়, আজ শরতের আকাশে পূর্ণিমা, চলো তুমুল বৃষ্টিতে ভিজি, পোড়াবে চন্দন কাঠ, আমি নই ইন্দ্রজিৎ, মেঘের আড়ালে, একজন রাজনৈতিক নেতার মেনিফেস্টো, প্রেমের কবিতা, কবিতাসংগ্রহ ইত্যাদি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও পঁচাত্তরের নির্মম হত্যাকা- নিয়ে তিনি কিছু স্মরণীয় কবিতা রচনা করেছেন। 

কাব্যক্ষেত্রে কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের জন্য তিনি সৈয়দ মুজতবা আলী সাহিত্য পুরস্কার, কবি সুকান্ত সাহিত্য পুরস্কার, কবি জীবনানন্দ দাশ পুরস্কার, কবি জসীমউদ্দীন সাহিত্য পুরস্কার, ত্রিভুজ সাহিত্য পুরস্কার, কবি বিষ্ণু দে পুরস্কার, পশ্চিমবঙ্গ, ভারতসহ অনেক সম্মাননা লাভ করেন।

তিনি জাতীয় কবিতা পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সংগঠকদের অন্যতম এবং তিন মেয়াদে সাধারণ সম্পাদদের দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে জাতীয় কবিতা পরিষদের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। 

একজন দক্ষ, পরিশ্রমী, সাহসী ও ত্যাগী সংগঠক হিসেবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এবং দেশের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনে নেতৃত্ব দিয়ে ড. মুহাম্মদ সামাদ সুনাম অর্জন করেছেন। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সহ-সভাপতি ড. মুহাম্মদ সামাদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার দায়িত্ব সুষ্ঠুভাবে পালন করার পাশাপাশি জাতীয় জীবনের বিভিন্ন দুঃসময়ে সমরতন্ত্র, সাম্প্রদায়িকতা ও স্বাধীনতাবিরোধী শক্তির বিরুদ্ধে একজন অকুতোভয় শিক্ষাবিদ ও কবি হিসেবে সর্বদা জাতীয় দায়িত্ব পালন করেছেন। 
 --------------------


পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত)
জনসংযোগ দফতর 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
 

Latest News
  • Law Conference begins at DU

    17/09/2018

    Read more...
  • ঢাবি ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ

    17/09/2018

    Read more...
  • ঢাবি-এ ২৮তম নাজমা জেসমিন চৌধুরী স্মারক বক্তৃতা অনুষ্ঠিত

    16/09/2018

    Read more...
  • জাতীয় অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলামকে ঢাবি সংগীত বিভাগের সংবর্ধনা প্রদান

    16/09/2018

    Read more...
  • ঢাবি ‘গ’ ইউনিট (Ga-unit)-এর ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

    16/09/2018

    Read more...
  • ঢাবি ‘চ’ ইউনিট (Cha-unit)-এর ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

    16/09/2018

    Read more...
  • ঢাবি-এ ‘মানুষের জন্য বিজ্ঞান’ বিষয়ক গবেষণা এ্যাওয়ার্ড প্রদান

    16/09/2018

    Read more...