ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন রেজিস্ট্রার আবু জায়েদ শিকদার-এর ইন্তেকাল।। উপাচার্যের শোক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন রেজিস্ট্রার আবু জায়েদ শিকদার  ২ জুলাই ২০১৮ সোমবার সকালে  বার্ধক্যজনিত কারণে গ্রীণ রোডস্থ নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্নালিল্লাহি........ রাজিউন)। তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৯ বছর। 

আবু জায়েদ শিকদার- এর মৃত্যুতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এক শোকবাণীতে উপাচার্য বলেন, আবু জায়েদ শিকদার বিশ্ববিদ্যালয়ের শুধু একজন নিষ্ঠাবান কর্মকর্তা ছিলেন না, তিনি ছিলেন এক ভাষা সৈনিক। ১৯৫২ সালের ২১ শে ফেব্রুয়ারি আমতলায় ছাত্রসভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১৪৪ ধারা ভঙ্গের জন্য প্রথম দশ জনের যে দলটি রাস্তায় নেমে আসে তিনি তার অন্যতম একজন সদস্য ছিলেন। বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের কাছে তিনি স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

উপাচার্য মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন এবং তাঁর পরিবারের শোক-সন্তপ্ত সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

আবু জায়েদ শিকদার- এর জন্ম ১৯৩১ সালে কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি থানার কড়িকান্দি গ্রামে। ১৯৫১ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গণিত বিভাগ থেকে বি এস সি (অনার্স) এবং ১৯৫২ সালে এম এস সি পাশ করেন। এরপর সুনামগঞ্জ কলেজ, চাঁদপুর কলেজ এবং ময়মনসিংহের আনন্দমোহন কলেজে শিক্ষকতা করেন। তিনি ১৯৬৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সহকারী কন্ট্রোলার হিসেবে যোগদান করেন। ১৯৭২ থেকে ১৯৮৫ সাল পর্যন্ত তিি ডেপুটি কলেজ পরিদর্শক, ১৯৮৫ থেকে ১৯৮৭ সাল পর্যন্ত কলেজ পরিদর্শক এবং ১৯৮৭ সাল থেকে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। 

একজন দক্ষ সংগঠক হিসেবে আবু জায়েদ শিকদার ১৯৫৭ সালে তৎকালীন ইউ.ও.টি.সিতে (পরবর্তীতে বিএনসিসি) যোগদান করেন এবং ১৯৫৯ সালে কমিশনপ্রাপ্ত হন। ১৯৮৭-১৯৯৭ সাল পর্যন্ত তিনি লেঃ কর্ণেল হিসেবে ১ রমনা ব্যাটেলিয়ানের কমান্ডিং অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। 

আবু জায়েদ শিকদার বাংলা ভাষায় বিজ্ঞান শিক্ষা বিস্তারের লক্ষ্যে কলেজের শিক্ষার্থীদের জন্য বাংলা ভাষায় গণিতের একাধিক গ্রন্থ রচনা করেন। তিনি বাংলা ভাষা চালুর লক্ষ্যে গঠিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের “প্রশাসনিক পরিভাষা কমিটি”র সদস্য-সচিব এবং “বাংলাদেশ গণিত সমিতির” পরিভাষা কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ‘মাতৃভাষা পদক’ লাভ করেন। 

আবু জায়েদ শিকদার মৃত্যুকালে স্ত্রী, তিন মেয়ে, দুই ছেলে, আত্মীয়স্বজন সহ অসংখ্য শুভাকাক্সক্ষী ও গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর মেঝ মেয়ে অধ্যাপক ড. নাজমা শাহীন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পুষ্টি ও খাদ্য বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক। 

উল্লেখ্য, মরহুমের নামাজে জানাজা আগামী ৪ জুলাই ২০১৮ বুধবার বাদ জোহর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মসজিদুল জামিয়া’য় অনুষ্ঠিত হবে। 

---------------

পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত)
জনসংযোগ দফতর
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
 

News and Events
  • UK team meets DU VC

    19/02/2019

    Read more...
  • 10 DU students get NEF of Japan scholarship

    19/02/2019

    Read more...
  • চারুকলা অনুষদে ‘অবিন্তা আর্কাইভ ওয়েবসাইট’ ও ‘লাইব্রেরি ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার’ উদ্বোধন

    19/02/2019

    Read more...
  • মহান একুশে উপলক্ষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যাতায়াতের রুট ম্যাপের বিবরণ

    18/02/2019

    Read more...
  • মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের ভাবগাম্ভীর্য বজায় রাখার জন্য ঢাবি উপাচার্যের আহ্বান

    18/02/2019

    Read more...
  • ঢাবি ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত

    17/02/2019

    Read more...
  • ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার দেয়ালসমূহে কোন ছবি পোস্টার ও ব্যানার লাগানো যাবে না

    17/02/2019

    Read more...